রোমানিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা 2022|| রোমানিয়া ভিসা প্রসেসিং || রোমানিয়া যেতে কত টাকা লাগে ||

রোমানিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা 2022।  

রোমানিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা পাওয়ার জন্য আপনাকে নির্দিষ্ট বিষয়ের প্রতি অবশ্যই জেনে নেয়া লাগবে। তাহলে চলুন দেখে নেয়া যাক রোমানিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা পাওয়ার জন্য কি কি কাগজ পত্র  প্রয়োজন।রোমানিয়া নোটারি করতে মিনিমাম 7 থেকে 10 দিন সময় নিয়ে থাকে এরপর আপনার সমস্ত ফাইলগুলো রোমানিয়া ইমিগ্রেশনে জমা করণে হয়ে থাকে।


এগুলো সব ইমিগ্রেশন জমা হওয়ার পরে একটা স্লিপ দিয়ে দিবে আপনাকে এবং সেটাতেই লেখা থাকবে যেগুলো সেগুলো জমা করতে হবে এবং কবে উত্তোলন করবেন এবং কতজন ফাইল একসাথে জমা করানো হয়েছে সেগুলো উল্লেখ্য থাকবে। এবং আপনাকে কন্টাক্ট লেখা সহ সকল ডকুমেন্ট এর হার্ডকপি সহ আপনার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আপনার নিজস্ব ঠিকানায় কুরিয়ার করে পাঠিয়ে দেবে এবং সেই বিষয়গুলো নিয়ে ছয় মাসের ট্রাভেল ইন্সুরেন্স তৈরি করে তোমাকে সবগুলো ফাইল এর স্ক্যান করে অনলাইনে জমা দিতে হবে। 


অনলাইনে জমা দেয়ার পরে মনে রাখবেন কোম্পানি থেকে একটি ইমেইল অথবা একটি সাপোর্ট হিসেবে যে কোন ডকুমেন্ট অবশ্যই নিয়ে নিবেন এতে করে ভিসা পেতে আপনার জন্য অনেকটা সুবিধা হবে। আপনার অনলাইনে সমস্ত কার্যক্রম শেষ করার পরে কয়েক দিনে আপনাকে এম্বাসী থেকে অ্যাপার্মেন্ট দিয়ে দিবে ।


আর আপনি সেটাকে প্রিন্ট করে দিল্লিতে অবস্থানরত রোমানিয়া এম্বাসি তে তারিখ অনুযায়ী কাগজ গুলো পাঠিয়ে দিবেন এবং নিজে গিয়ে সেখানে জমা করে আসবেন সেখানে কোনো রকম জিজ্ঞাসা কর এবং অন্য বিষয় থাকবে না ।আপনি সরাসরি গিয়ে জমা দিতে পারবেন এবং 14 থেকে 15 দিনের মধ্যে স্টিকার করে দিবেন আপনার পাসপোর্ট

রোমানিয়া ভিসা প্রসেসিং

রোমানিয়া ভিসা প্রসেসিং করতে কি কি কাগজপত্র লাগবে এবং কত দিন সময় লাগবে এবং কোন বিষয়গুলো আপনার জেনে নেয়া লাগবে সেই বিষয় নিয়ে নিচে বিস্তারিত তুলে ধরা হলো এবং রোমানিয়া এম্বাসি তে কোন কোন কাগজপত্র লাগবে তার একটি লিস্ট নিচে তুলে দিলাম

রোমানিয়া এম্বাসিতে  যা যা প্রয়োজন

নিচের দেয়া প্রয়োজনীয় কাগজপত্র গুলো অবশ্যই আপনার ভিসা প্রসেসিংয়ের জন্য লাগবে। তাই এই সমস্ত কাগজপত্র ভুলগুলো আগেই সমস্ত বিষয় গুলো ঠিক করে রাখবেন দেখা যাচ্ছে আপনার এনআইডি অথবা বার্থ সার্টিফিকেট যদি কোন ভুল থাকে এবং আপনার বিষয়ে কার্যক্রমের যদি কোনো জটিলতা থাকে তাহলে সেগুলো আগেই ঠিক করে রাখবেন।

১ আপনার একটি অরজিনাল পাসপোর্ট লাগবে 1 বছর মেয়াদী।
২ পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট লাগবে।
৩ ছয় মাসের ট্রাভেল ইন্সুরেন্স লাগবে। 
৪ভিসা অ্যাপ্লিকেশন ফর্ম।
 ৫ বাস বুকিং টিকিট অবশ্যই কনফার্ম করা হয়।
৬ ওয়ার্ক পারমিটের কপি।
 ৭কন্টাকটার এর কপি।
৮ আর দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি।

রোমানিয়া যেতে কত টাকা লাগবে

করণা মহামারীর কারণে দেশে অনেকদিন যাবত বৈদেশিক কার্যক্রম বন্ধ থাকায় নতুন ভাবে আবার চালু হয়েছে। তাই যারা রোমানিয়াতে যেতে চাচ্ছেন তাদের জন্য একটি বিষয় জেনে রাখা উচিৎ । যে আগের তুলনায় কিছুটা বিমান  ভাড়া সহ ভিসা প্রসেসিং এবং ক্ষেত্রে টাকা কিছু বেড়ে গিয়েছে। 

তাই এখন আপনার ভিসার খরচ পড়তে পারে মিনিমাম 84 টাকা থেকে 9 লক্ষ টাকা পর্যন্ত। কারণ বর্তমান সময়ে বিভিন্ন দেশের যাতায়াত খরচ অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে ।এটি শুধুমাত্র একটি ধারণা দেয়া হল ৮ থেকে ৯ লক্ষ টাকা লাগতে পারে।

রোমানিয়া থেকে ইতালি

রোমান থেকে ইতালি যাওয়ার জন্য আপনাকে একটি মাধ্যম অবলম্বন করা লাগতে পারে। আপনি যদি রোমান থেকে ইতালি যেতে চান তাহলে আপনি ভ্রমণ ভিসার মাধ্যমে যেতে পারবেন। তবে যদি আপনি কাজ করার উদ্দেশ্যে যেতে চান তাহলে আপনাকে সেখানে ভ্রমণ অবস্থায় আপনাকে কাজে লেগে যেতে হবে এবং কাজ করতে করতে আপনি দুই মাস সময় পাবেন ।


এই দুই মাসের মধ্যে আপনাকে তাদের এম্বাসিতে গিয়ে আপনার যে কোন একটি বিষয় তুলে ধরবেন যেমন আমি দেশে ফিরতে পারছিনা আমার দেশের সমস্যা রাজনৈতিক সমস্যা এমন একটি বিষয় তুলে ধরবেন। তারপরে আপনি ইতালি ভিসা পাওয়ার জন্য আপনাকে যাচাই-বাছাই করে ভিসা দেয়ার ব্যবস্থা করবেন তারা তবে অবশ্যই আপনার কারণটা যেনো স্টং হয় এমন একটি কারণ দেখাতে হবে।

রোমানিয়া কাজের বেতন

আপনারা যারা কাজ করতে ইচ্ছুক তারা আমাদের কাছে কাজের বেতন সম্পর্কে জানতে চান কেননা রোমানিয়াতে আপনারা অর্থ উপার্জন করার জন্য যাবেন। সেক্ষেত্রে আপনাদের সকলের রোমানিয়া কাজের বেতন সম্পর্কে জানা জরুরী আসুন জেনে নিই রোমানিয়া কাজের বেতন সম্পর্কে।


রোমানিয়াতে গিয়ে একজন শ্রমিক মাসে 400 থেকে 500 ডলার আয় করে থাকে যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় 38 থেকে 40 হাজার পর্যন্ত রোমানিয়া কাজের উপর ভিত্তি করে বেতন নির্ধারণ করা হয়ে থাকে যারা ভালো কাজ করতে পারেন তাদের বেতন আরো বেশী আশা করি আপনারা রোমানিয়া কাজের বেতন সম্পর্কে বুঝতে পারছেন

 রোমানিয়া যাওয়ার উপায়

আগে বাংলাদেশ থেকে যাওয়ার মাধ্যম গুলো বন্ধ ছিল সেই কারণে বাংলাদেশের শ্রমিকরা বাংলাদেশ থেকে রোমানিয়া যাওয়ার উদ্দেশ্যে দিল্লি এম্বাসি এর মাধ্যমে যাওয়া লাগবে কিন্তু বর্তমানে বাংলাদেশে থেকেই এখন রোমানিয়া যাওয়া যাচ্ছে।

সেই ক্ষেত্রে বাংলাদেশ থেকে ভিসা কার্যক্রম সবগুলোই করতে পারেন।সে ক্ষেত্রে আপনাকে বাংলাদেশ প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন সংস্থার সাথে যোগাযোগ করা লাগবে বিএমআইটি সহ বিভিন্ন কোম্পানি রয়েছে যেগুলো বাংলাদেশ সরকার পরিচালনা করা হয়।

রোমানিয়া ভিসা আপডেট 2022

বর্তমানে রোমানিয়া ভিসা চালু আছে এবং আপনি বিভিন্ন ক্যাটাগরির ভিসা নিয়ে পাড়ি জমাতে পারবেন। করোনার কারণে দীর্ঘদিন যাবতীয় কার্যক্রম বন্ধ ছিল কিন্তু বাংলাদেশে অথবা দিল্লির মাধ্যমে। বর্তমানে বাংলাদেশের মানুষকে নিয়ে যেতে পারে তাই আপনি চাইলেই রোমানিয়া বিষয় নিয়ে নতুনভাবে আবার যেতে পারবে।
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url